You are here: Home » সংস্কৃতি » কাল শুরু হচ্ছে পাহাড়ের প্রাণের উৎসব বৈসাবি

কাল শুরু হচ্ছে পাহাড়ের প্রাণের উৎসব বৈসাবি 

৮

।। জনমত ডেস্ক ।।আগামীকাল বুধবার শুরু হচ্ছে পাহাড়ের প্রাণের উৎসব বৈসাবি। এর প্রথম পর্ব হিসেবে কাল অনুষ্ঠিত হবে চাকমাদের ফুল বিঝু। ভোরে চেঙ্গীনদীতে ফুল ভাসানোর মধ্য দিয়ে বৈসাবির আনুষ্ঠানিকতা সূচনা হবে। চৈত্র সংক্রান্তির শেষ দুই দিন ও বাংলা নববর্ষের প্রথম দিন- এই তিন দিন মূলত বিঝু পালন করেন চাকমা আদিবাসীরা। একই সময় ত্রিপুরাদের বৈসু উৎসব। এ ছাড়া নববর্ষের দিন শুরু হয় মারমা আদিবাসীদের সাংগ্রাইং উৎসব।

ঐতিহ্যবাহী বৈসাবি উপলক্ষে চাকমা, মারমা ও ত্রিপুরাসহ সব ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর প্রাণের এ উৎসবের আমেজ ছড়িয়ে দিতে আজ মঙ্গলবার সকালে পার্বত্য জেলা পরিষদের উদ্যোগে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। হাজার হাজার পাহাড়ি-বাঙালির স্বতঃস্ফুর্ত অংশগ্রহণে সেটি হয়ে ওঠে সর্বস্তরের মানুষের মিলন মেলায়। শোভাযাত্রাটি পরিষদ কার্যালয় প্রাঙ্গণ থেকে শহর প্রদক্ষিণ করে সরকারি হাইস্কুল মাঠে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে জেলা পরিষদের উদ্যোগে মারমাদের জলকেলি, ত্রিপুরাদের ‘গরয়া’ নৃত্যসহ বিভিন্ন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

এর আগে শোভাযাত্রা উদ্বোধন করেন খাগড়াছড়ির সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা। এ সময় সেনাবাহিনীর খাগড়াছড়ি রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মীর মুশফিকুর রহমান, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, বিজিবির সেক্টর কমান্ডার কর্নেল মো. মতিউর রহমান, জেলা প্রশাসক মো. রাশেদুল ইসলাম, পুলিশ সুপার আলী আহমদ খান, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নির্মলেন্দু চৌধুরী, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান চঞ্চুমনি চাকমা, পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্যসহ বিভিন্ন পর্যাায়ের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি ও নানা শ্রেণি পেশার মানুষ অংশ নেন।

খাগড়াছড়ির সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা ও পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী পৃথক বাণীতে খাগড়াছড়িবাসীর প্রতি বৈসাবির শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। শরণার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান যতীন্দ্র লাল ত্রিপুরা সবাইকে প্রতি অভিনন্দন জানান।

কর্মসূচি: এদিকে আগেভাগেই শুরু হয়ে গেছে ঐতিহ্যবাহী বিভিন্ন খেলাধুলা। বৈসাবি উপলক্ষে পার্বত্য জেলা পরিষদ, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক ইন্সটিটিউট ঐতিহ্যবাহী খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। খাগড়াছড়ি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে চলছে পক্ষকালব্যাপী পার্বত্য উদ্যোক্তা ও সাংস্কৃতিক মেলা। খাগড়াছড়ি সার্বজনীন বৈসাবি উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রনিক ত্রিপুরা জানান, আগামীকাল সার্বজনীন মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করা হবে। এর আগে ভোরে নদীতে আনুষ্ঠানিকভাবে ফুল ভাসানোর কর্মসূচি রয়েছে।

সাংগ্রাইং উদযাপন কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক মংসাপ্রু মারমা জানান, মারমা উন্নয়ন সংসদের উদ্যোগে পানখাইয়াপাড়ায় পাঁচ দিনের ঐতিহ্যবাহী খেলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও কাল শুরু হবে। সাংগ্রাইং এর প্রধানতম আকর্ষণ ‘জলকেলি’ উৎসব হবে ১৪ এপ্রিল। ওইদিন সকালে শোভাযাত্রাও হবে। নববর্ষের দিনে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে নানা কর্মসূচি।

Add a Comment