You are here: Home » সারা দেশ » বিছানায় মেয়ের লাশ, পাশে ছটফট করছেন মা

বিছানায় মেয়ের লাশ, পাশে ছটফট করছেন মা 

২

।। জনমত ডেস্ক ।। ভোর পাঁচটার দিকে মেয়ের নম্বর থেকে ফোন আসে ময়দান আলীর মোবাইলে। ও পাশে এক পুরুষ কণ্ঠ। জানায়, তাঁর মেয়ে বিষ খেয়েছেন। এ কথা শুনেই ছেলে তারেক মাহমুদকে সঙ্গে নিয়ে ছোটেন মেয়ের শ্বশুরবাড়ি। গিয়ে দেখেন, ঘরের মধ্যে নাতনির মরদেহ পড়ে আছে। আর মেয়ের অবস্থা গুরুতর। সঙ্গে সঙ্গে মেয়েকে নিয়ে ছোটেন হাসপাতালে।
জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে কথা হয় ময়দান আলীর সঙ্গে। অসুস্থ মেয়ে খুকু মণি তখন পুলিশি হেফাজতে হাসপাতালের বিছানায়।
খুকু মণি ইসলামপুর উপজেলার গাইবান্ধা ইউনিয়নের নাপিতেরচর ডাকপাড়া গ্রামের আমিনুল ইসলামের স্ত্রী। তবে আমিনুল তিনি ঢাকায় শ্রমিকের কাজ করেন। বাড়িতে খুকু মণি শ্বশুর ও শাশুড়ির সঙ্গে থাকতেন। নিহত শিশুর নাম আনিকা আক্তার। বয়স চার বছর।
স্থানীয় লোকজনের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, গতকাল রোববার বিকেলে খুকু মণি শিশুটিকে বাড়িতে রেখে বেড়াতে যান। তিনি সন্ধ্যার পর বাড়িতে ফেরেন। আজ ভোর পাঁচটার দিকে শিশুটির নানা ময়দান আলী ও কয়েকজন লোক খুকু মণিকে অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে যান। এ সময় স্থানীয় লোকজন ঘরে বিছানার ওপর শিশু আনিকা আক্তারের লাশ দেখতে পান। খুকু মণিকে প্রথমে ইসলামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। খবর পেয়ে আজ বেলা একটার দিকে পুলিশ শিশুটির লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জামালপুর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।
জামালপুর জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসা কর্মকর্তা মো. মাহাবুবুর রহমান বলেন, ‘খুকু মণি নামে বিষ খাওয়া একজন রোগী ভর্তি হয়েছেন। তিনি কৃষি খেতে দেওয়ার কীটনাশক খেয়েছেন। তাঁকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তিনি এখন অনেকটা সুস্থ রয়েছেন।’
ইসলামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দ্বিন-ই-আলম প্রথম আলোকে বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, শিশুটিকে তার মা প্রথমে বিষ ও পরে শ্বাসরোধে হত্যা করেছেন। আজ ভোরবেলায় কাউকে না জানিয়ে শিশুটির নানা ময়দান আলী মেয়েকে নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করেছেন। তবে শিশুটির মাকে পুলিশি হেফাজতে রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।’

Add a Comment