You are here: Home » মতামত » কর্মক্ষেত্রে কাজের ফাঁকে একটু বিরতি

কর্মক্ষেত্রে কাজের ফাঁকে একটু বিরতি 

11
তারিক  হোসাইন খান | আপডেট: অক্টোবর ০৮ ২০১৫ |

অফিসে কাজের চাপে ক্লান্ত লাগলে সহকর্মীর সঙ্গে মিনিট পাঁচেকের আড্ডা ​​দিতে বা গল্প করতে পারেন মডেল: মুন ও তুর্য, ছবি: অধুনাজাপানে নাকি কাজের ফাঁকে একটু ঘুমিয়ে নেওয়ার চল আছে। আমাদের দেশে অবশ্য এই চল নেই, কিন্তু তারপরেও অনেকে অফিসের টেবিলে মাথা রেখে নাক ডাকেন। সারাক্ষণ কম্পিউটারের সামনে বসে থাকা, সকাল থেকে একগাদা ফাইল-কাগজপত্র-হিসাবনিকাশ মাথায় নিয়ে অফিসের এই মিটিং-সেই মিটিংয়ে হাজির হয়ে দুপুরের মধ্যে ক্লান্তি ভর করে শরীরে। কারও আবার দুপুরের খাওয়ার পর অফিসের চেয়ারকে সুখনিদ্রার জন্য শয্যাই মনে হয়। দীর্ঘক্ষণ কাজ, অফিসের হাঙ্গামায় ক্লান্তি ভর করে আমাদের শরীরে। অফিসেই কি ঘুমিয়ে ক্লান্তি কাটাব না ঝিমিয়ে ঝিমিয়ে বাকিটা সময় পার করে দিয়ে কাজে অমনোযোগিতা দেখাব? এই দ্বিধার উত্তর কী?
কর্মক্ষেত্রে কাজের চাপ কখনো বেশি আবার কখনো কম থাকে। প্রায় আট ঘণ্টার মতো অফিসে সময় দিতে হয়। এই দীর্ঘ সময় কাজের জন্য অফিসে শরীরে ক্লান্তি ভর করা স্বাভাবিক। মানবদেহের চিরায়ত শারীরতাত্ত্বিক কাঠামোর জন্য ক্লান্তি ভর করবেই। এই বুদ্ধি আর জীবনযাপনে পরিবর্তন আনলেই অফিসে ক্লান্তির জন্য ঘুম আর হতাশাকে দূর করা যায়। বেসরকারি নির্মাণ প্রতিষ্ঠান বেস্ট হোল্ডিংস লিমিটেডের মানবসম্পদ উন্নয়ন বিভাগের পরিচালক রুবিনা খান বলেন, ‘কাজের মধ্যে ক্লান্তির ছায়া পড়লে কাজের মান খারাপ হবেই। চেষ্টা করতে হবে শরীরের ক্লান্তির রেশ যেন কাজে স্পর্শ না করে।’ এই মানবসম্পদ ও যোগাযোগ বিশেষজ্ঞ আরও বলেন, ‘আট ঘণ্টা অফিসে ক্লান্তি ছাড়া কাজ করার সবচেয়ে বড় বুদ্ধি হলো জীবনযাপনে পরিবর্তন আনা। রাতে ছয় থেকে সাত ঘণ্টা ঘুমিয়ে প্রতিদিন খুব সকাল-সকাল ঘুম থেকে ওঠার অভ্যাস করতে হবে। এর সঙ্গে টুকটাক ব্যায়ামও করার অভ্যাস করুন। দেরি করে ঘুম থেকে উঠে অফিসে গেলে এমনিতেই শরীরে ক্লান্তি ভর করে।’ নিয়মিত ঘুম সারা দিনে শরীরের কর্মচাঞ্চল্যের ওপর প্রভাব ফেলে বলে মনে করেন তিনি।
অফিসে কাজের চাপে ভীষণ ক্লান্ত লাগলে এক কাপ চা কিংবা কফি নিয়ে সহকর্মীর সঙ্গে মিনিট পাঁচেকের আড্ডা দিতে বা গল্প করতে পারেন। তবে অন্যদের কাজে যেন আপনার আড্ডার জোয়ার না পড়ে সেদিকে খেয়াল রাখুন।
ম্যান ফিটনেস ডট কম ওয়েবসাইট পরামর্শ দেয়, টেবিলে চকলেট বা মিষ্টিজাতীয় কিছু রাখতে পারেন। ক্লান্তিতে মুখে চকলেট দিয়ে ক্লান্তি কাটানো যায়। ইনক ডট কম অফিসে ক্লান্তি কাটাতে নিয়মিত পানি পানের অভ্যাসকে গুরুত্ব দেয়। শরীর সুস্থ রাখতে পানির কোনো বিকল্প নেই। পানিশূন্যতা শরীরকে নিস্তেজ করে দেয়। মনঃসংযোগ নষ্ট হয়। তাই সারা দিন পানি পান করুন, নিজেকে সতেজ রাখুন।
রুবিনা খান অফিসে ক্লান্তি দূর করতে হাঁটাচলা কিংবা সিঁড়ি দিয়ে চলাফেলার মতো হালকা ব্যায়াম করার পরামর্শ দেন। কিছু হালকা ব্যায়াম করলে শরীরের রক্ত সঞ্চালন বাড়ে, এতে ক্লান্তি দূর হয়। দুপুরের পরে অনেকে খাওয়ার পর একটু ঘুমানোর চেষ্টা করেন। এ ক্ষেত্রে অফিসে ঘুমালে অন্য সহকর্মীরাও উৎসাহিত হন। অফিসে না ঘুমানো ভালো। খুব ঘুম এলে পত্রিকা পড়ার চেষ্টা করুন।
হাসিখুশি আর প্রাণচাঞ্চল্যকর ব্যক্তিত্ব নিয়ে অফিসে কাজ করার অভ্যাস করুন, ক্লান্তি তেমন ভর করবে না শরীরে। কর্মক্ষেত্রের পরিবেশ দারুণ হলে সহকর্মী ও আপনার ওপরে ক্লান্তি ভর করার তেমন উপায় নেই। কাজ উপভোগ করুন, ক্লান্তি কেটে যাবে।

Add a Comment